মার্কিন ডাটায় প্রভাবিত হতে পারে EURUSD

- Advertisement -

টানা কয়েকদিন ধরে মার্কিন ডলারের বিপরীতে ইউরো দুর্বল  অবস্থানে আছে,পেয়ারটি বেশ কিছুদিন ধরে ১.১৭৫০ প্রাইসকে কেন্দ্র করে মুভমেন্ট করছে।আজ সপ্তাহের শেষ দিনে এশিয়ান সেশনে EURUSD প্রাইস বৃদ্ধির চেষ্টা করছে।  যদিও গতকাল পেয়ারের প্রাইস কমেছিল,গতকাল ডলারকে প্রভাবিত করার মতো ইভেন্টগুলোর মধ্যে অন্যতম জ্যাকসন হোল সিম্পোজিয়াম, এর আগে গত সপ্তাহে পেয়ারটি কয়েক মাসের নিন্ম প্রাইসে এসেছিল। পরবর্তীতে পুনরায় বৃদ্ধি পেলেও চলতি সপ্তাহে  ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হচ্ছে।

এদিকে মার্কিন ডলার শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে।  মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ৯৩.০৩ প্রাইসে অবস্থান করছে। ইউরোজোন বিনিয়াগকারীদের মধ্যে কোভিড-১৯ উদ্বিগ্নতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।  বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা WHO এর মতে, ইউরোপে করোনা সংক্রামণ ক্রমাগত বৃদ্ধি পেলেও এখনও ততোটা পর্যায়ে পৌছায়নি কারণ অঞ্চলটি টিকাদানে ব্যাপক জোড় দিচ্ছে।  তবে মহামারীর অনিশ্চয়তা আর্থিক মার্কেটে অনিশ্চয়তা সৃষ্টি করছে।

আজ পেয়ারটিকে প্রভাবিত করার মতো বেশ কিছু নিউজ আছে, দুপুর ১২ টায় প্রকাশিত হবে ইউরোজোনের ডাটা German Import Prices m/m , এছাড়া ৬.৩০ মিনিটে মার্কিন ডাটা Core PCE Price Index m/m , Goods Trade Balance , Personal Income m/m , Personal Spending m/m , Prelim Wholesale Inventories m/m এছাড়া রাত ৮ টায় Revised UoM Consumer Sentiment ,Revised UoM Inflation Expectations , এদিকে মার্কিন ইভেন্টগুলো মধ্যে অন্যতম ফেডারেল রিজার্ভের চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েলের আলোচনা যা রাত ৮ টায় প্রকাশিত হবে ।

EURUSD পেয়ারের ক্ষেত্রে বর্তমান রেজিস্ট্যান্স হতে পারে  ১.১৮০০ । পেয়ারটি উল্লেখিত রেজিস্ট্যান্স অতিক্রমে সক্ষম হলে ক্রমাগত আপট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে। পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.১৮৫০।

অপরদিকে পেয়ারের বর্তমান সাপোর্ট ১.১৭৩০ এবং পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ১.১৭০০। ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হলে ১.১৬৭০ এবং ১.১৬৪০ সাপোর্টে যেতে পারে।

- Advertisement -

সাম্প্রতিক

- Advertisement -

Related news

- Advertisement -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here