জুন মাসের সর্বনিম্ম প্রাইসে আসতে পারে EURUSD

- Advertisement -

 সপ্তাহের প্রথম  দিনে  এশিয়ান সেশনে EURUSD পেয়ারটি ১.১৯৪৩ প্রাইসের কাছাকাছি আসলেও পরবর্তীতে প্রাইস কমে ১.১৯০১ প্রাইসে এসেছিল।  আমাদের পূর্বের আর্টিকেলে আমরা উল্লেখ করেছিলাম যে কমার্জব্যাংক অ্যানালাইসিস্টদের মতে, পেয়ারটি ১.১৯৪৫ প্রাইস অতিক্রম করতে সক্ষম হলে পুনরায় প্রাইস কমে ১.১৯০০ প্রাইসে আসতে পারে।

আজ মঙ্গলবার EURUSD পেয়ারটি পুনরায় শক্তিশালী হতে শুরু করেছে। গতকাল পেয়ারের প্রাইস কমলেও আজকের সেশনে পেয়ারটির আপট্রেন্ড আসার চেষ্টা করছে  বর্তমানে পেয়ারটি ১.১৯১৭ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে। পেয়ারের আপট্রেন্ড অব্যাহত থাকবে কিনা সেটা দেখার বিষয়।

মার্কিন ডলারের বিপরীতে ইউরো ক্রমাগত দুর্বল হচ্ছে। মার্কিন ডলার ৩ মাসের মধ্যে সবথেকে বড় সাপ্তাহিক লাভের পরে এপ্রিলের শুরুর দিকের প্রাইসে যাচ্ছে।বর্তমানে ডলারে ৯২.০০ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে,ডলারের প্রাইস বৃদ্ধির পেছনে ফেডারেল রিজার্ভের কর্মকর্তাদের হকিশ মন্তব্য কাজ করছে। এর ফলে গতসপ্তাহ EURUSD কয়েক সপ্তাহের  নিন্ম প্রাইসে পৌঁছেছে।

রয়টার্সের সূত্রে, ইউরো এপ্রিল মাসের নিন্ম প্রাইসে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। পেয়ারটি বর্তমানে ১.১৯৫২ রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করছে।২০০ দিনের মুভিং অ্যাভারেজ অনুযায়ী পেয়ারটির পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.১৯৯৬।
আপরদিকে পেয়ারের ক্ষেত্রে ১.১৮৩৬ শক্ত সাপোর্ট হিসেবে কাজ করতে পারে। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, আজকের সেশনে পেয়ারটি প্রাইস কমতে থাকলে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হবে।

- Advertisement -

সাম্প্রতিক

- Advertisement -

Related news

- Advertisement -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here