তৃতীয় সপ্তাহের মতো ডাউনট্রেন্ডে- GBPUSD

- Advertisement -

টানা কয়েকদিন ধরে মার্কিন ডলারের বিপরীতে পাউন্ডের প্রাইস কমছে, বর্তমানে পেয়ারটির ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হচ্ছে।গত সপ্তাহে মার্কিন ডাটা এন এফ পি কে কেন্দ্র করে পেয়ারটির দাম কমতে শুরু করেছে।আজও পেয়ারটি মার্কিন ডলারের বিপরীতে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারে নি যার কারনে আজ বুধবার এশিয়ান সেশনে পেয়ারটি ১.৩৮৪০ প্রাইসে ওপেন হলেই পরবর্তীতে কমতে থাকে এবং সর্ব নিম্ম ১.১৮০৬ প্রাইসে হিট করে ,বর্তমানে পেয়ারটি ১.৩৮১০ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে।

এদিকে ফেডারেল রিজার্ভের ভাইস প্রেসিডেন্ট রিচার্ড ক্লারিডোর মন্তব্য ডলারকে প্রভাবিত করেছে।  তিনি আশ্বস্ত করেছেন FOMC সুদের হার বাড়ানোর ব্যাপারে পদক্ষেপ নিচ্ছে।

ফেডের এ ধরণের ঘোষণার পর মার্কিন ডলারের বিপরীতে পাউন্ডের প্রাইস বৃদ্ধি পেলেও লেবার মার্কেট পাউন্ডের বিপরীতে ডলারকে শক্তিশালী করেছিল।এদিকে নিউইয়াক সহ জার্মানে করোনাভাইরাসের ডেলটা ভেরিয়েন্ট সংক্রামণ ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে। দেশটির প্রশাসন ভাইরাস প্রতিরোধের ক্ষেত্রে কঠোরতা দেখাচ্ছে। যা ব্রিটেনের  ইকোনমির ক্ষেত্রে কিছুটা বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

আজ মার্কিন বেশ কিছু নিউজ আছে, সিপি আই এবং কোর সিপি আই কে কেন্দ্র করতে GBPUSD প্রাইস আরো কমতে পারে। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, CPI ০.৯% থেকে কমে ০.৫% এবং Core CPI ০.৯% থেকে কমে ০.৪% আসতে পারে।  ইভেন্টগুলো প্রত্যাশা অনুযায়ী  এবং মুদ্রাস্ফীতি স্লোডাউন হয়, তাহলে মার্কিন ডলার শক্তিশালী হতে পারে।

পেয়ারের বর্তমান সাপোর্ট লেভেল ১.৩৮০০ এবং ৫০ দিনের এস এম এ অনুযায়ী পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ১.৩৭৫০। অপরদিকে পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স ১.৩৮৫০ এবং পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.৩৯০০।

- Advertisement -

সাম্প্রতিক

- Advertisement -

Related news

- Advertisement -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here