মার্কিন ডলারের বিপরীতে পুনরায় কমতে পারে ব্রিটিশ পাউন্ড

- Advertisement -

গত সপ্তাহে GBPUSD পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেলেও এ সপ্তাহের দ্বিতীয় দিন থেকে পেয়ারটির দাম কমতে শুরু করেছে,পাউন্ড বৃদ্ধি পাওয়ার পিছনে মূলত যুক্তরাষ্ট্রে ডেল্টা ভেরিয়েন্ট সংক্রমণের সংখ্যা বৃদ্ধি এবং সে সাথে  যুক্তরাজ্যে কোভিড উন্নতি, মার্কিন ডলারের বিপরীতে পাউন্ডকে শক্তিশালী করেছে। আজ এশিয়ান সেশনে পেয়ারটি  সর্বোচ্চ ১.৩৯৩০ প্রাইসে হিট করলেও পরবর্তীতে প্রাইস কমতে থাকে বর্তমানে পেয়ারটি ১.৩৮৮৫ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে পেয়ারের প্রাইস কমতে থাকলে সেক্ষেত্রে  সেলারদের টার্গেট হতে পারে ১.৩৮০০।  কারণ পেয়ারটি ১.৩৮৫০ প্রাইসের নিচে আসলে বিয়ারিশের সম্ভাবনা তৈরি হতে পারে।

 কমার্জব্যাংক অ্যানালাইসিস্ট কারেন জনসের মতে, GBPUSD পেয়ার বর্তমানে আপট্রেন্ডে থাকলেও পরবর্তীতে পেয়ারের প্রাইস কমতে পারে। সেক্ষেত্রে পেয়ারটি ১.৩৮৪০ প্রাইসে আসতে পারে। GBPUSD পেয়ারের ক্ষেত্রে ১.৩৮৪০ গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে উল্লেখ করেছেন।  কারেন জনস তার বিবৃতিতে আরো বলেন পেয়ারটি পুনরায় আপট্রেন্ড আসলে গত সপ্তাহের সর্বোচ্চ প্রাইস ১.৩৯৮০ প্রাইসে আসতে পারে।

প্রত্যাশা করা হচ্ছে, পেয়ারটি খুব তাড়াতাড়ি ১.৩৯২০ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের  আসতে পারে সেক্ষেত্রে পেয়ারের পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.৩৯৮০ ।অপরদিকে পেয়ারের ডাউনট্রেন্ড স্থায়ী হলে ১.৩৮৬৫ সাপোর্ট লেভেলে আসতে পারে। 

- Advertisement -

সাম্প্রতিক

- Advertisement -

Related news

- Advertisement -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here