১.৩৭৩৫ প্রাইসের নিচে চলে আসলে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে GBPUSD-UOB

- Advertisement -

মার্কিন ডলারের বিপরীতে পাউন্ডের দাম কমছে বেশ কিছুদিন ধরে,জুন মাসের মাঝামাঝি সময়ে পেয়ারটির প্রাইস বেড়ে ১.৪১০০ প্রাইসের উপরে উঠলেও পরবর্তীতে মার্কিন ডাটা কে কেন্দ্র করে পেয়ারের প্রাইস কমতে শুরু করেছে গতকাল এফএমসি মিটিং কে কেন্দ্র করে পেয়ারটি ১২ সপ্তাহের সর্বনিম্ম ১.৩৭৫২ প্রাইসে হিট করে।

এদিকে এফএমসি  মিটিং কে কেন্দ্র করে  মার্কিন ডলারের বিপরীতে ইউরো আগামী দু’দিন ডাউন্ট্রেন্ডে অব্যাহত থাকতে পারে।

গতকালের এফওএমসি মিটিংয়ে নীতিনির্ধারকরা মার্কিন মুদ্রাস্ফীতি নিয়ে উদ্বিগ্নতা প্রকাশ করেছিলন।  এছাড়াও মিটিংয়ে একটি অংশ ইকোনমিক অগ্রগতি অব্যাহত থাকলে সম্পদ ক্রয়ের সামঞ্জস্য নিয়ে কয়েকটি যুক্তি দেখিয়েছেন।

তবে গতকালের মিটিং মার্কিন ডলারের পক্ষে ছিল। যা ডলারের প্রাইস বৃদ্ধিতে সহায়তা করেছে। এখন পর্যন্ত মার্কিন ডলার সর্বোচ্চ ৯২.৮৪ প্রাইসে উঠেছে।  ৫ এপ্রিলের পরবর্তীতে ডলার প্রথমবারের মতো ৯২.৮৪ প্রাইসে এসেছে। আজকের সেশনে পুনরায় মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পাচ্ছে।  

আজও মার্কিন ডলারের বিপরীতে পাউন্ডের দাম কমছে দিনের শুরুতে এশিয়ান সেশনে পেয়ারটির প্রাইস ১.৩৮০০ এর উপরে থাকলেও পরবর্তীতে প্রাইস কমতে থাকে বর্তমানে পেয়ারটি ১.৩৭৭০ প্রাইসের কাছাকছি মুভমেন্ট করছে।

আজও মার্কিন বেশ কিছি নিউজ আছে যে পেয়াটিকে প্রভাবিত করতে পারে রাত ৮.৩০ এ প্রকাশিত হবে Natural Gas Storage এছাড়া রাত ৯ টায় Crude Oil Inventories।

 পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.৩৮১০।  পেয়ারটি উক্ত রেজিস্ট্যান্স অতিক্রমে সক্ষম হলে ১.৩৮৬০ প্রাইসে যেতে পারে।অপরদিকে পেয়ারটির বর্তমান সাপোর্ট হতে পারে ১.৩৭৫০।পরবর্তীতে পেয়ারটি ১.৩৭৩৫ প্রাইসের নিচে আসলে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে।

- Advertisement -

সাম্প্রতিক

- Advertisement -

Related news

- Advertisement -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here