GBPCAD বায়ারদের টার্গেট – ১.৭৩২০

- Advertisement -

টানা ৯ সপ্তাহ ধরে কানাডিয়ান ডলারের বিপরীতে ব্রিটিশ পাউন্ড ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে ,পেয়ারটি এ মাসের শুরুতে ১.৭৩৪০ প্রাইসে ওপেন হলেও পরবর্তীতে দাম বেঁড়ে সর্বোচ্চ ১.৭৬০০ প্রাইসে হিট করে ,পরবর্তীতে ব্রিটিশ ডাঁটকে কেন্দ্র করে পেয়ারটি ডাউনট্রেন্ডে আসতে শুরু করে এবং সর্বনিম্ম ১.৭২৪২ প্রাইসে হিট করে।বৃহস্পতিবারের মিটিংয়ে ব্যাংক অব ইংল্যান্ড ইন্টারেস্ট রেট অপরিবর্তনীয় রেখেছে। ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের ইভেন্ট কেন্দ্র করে GBPCAD পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ১.৭৪০০-তে উঠেছিল, বর্তমানে পেয়ারটি পুনরায় আপট্রেন্ডে আসার চেষ্টা করছে আজ সপ্তাহের প্রথম দিনে এশিয়ান সেশনে পেয়ারটি সর্বোচ্চ ১.৭৩০০ প্রাইসে হিট করে।

এছাড়াও ইউরোপে কোভিড- ১৯ বৃদ্ধির আশংকা WTI ক্রুড তেলের প্রাইস কমাতে সহায়তা করছে। এদিকে কানাডার প্রধান তেল রফতানি কারক এক্সপোর্টে সীমাবদ্ধাতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। যা কানাডিয়ান ডলারের ক্ষেত্রে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে।

৫০% ফিবোনাসি অনুযায়ী সেলারদের প্রথম চয়েজ ১.৭২৪০।যা এ মাসের সর্বনিন্ম প্রাইস। পেয়ারটির পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ১.৭২০০ এবং ৬১.৮% ফিবোনাসি অনুযায়ী পেয়ারটি পরবর্তীতে ১.৭১৬০ প্রাইসে যেতে পারে।

অপরদিকে পেয়ারটির দাম বৃদ্ধি পেতে থাকলে পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স লেভেল ১.৭৩০০। এবং পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.৭৩২০ এবং ১.৭৩৫০।পেয়ারটির আপট্রেন্ড পুনরায় শক্তিশালী হলে এ মাসের সর্বোচ্চ ১.৭৬০০ প্রাইসে আসতে পারে । পরবর্তীতে পেয়ারটির পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হবে ৩১ জুলাইয়ের সর্বোচ্চ প্রাইস ১.৭৬৭৬।

- Advertisement -

সাম্প্রতিক

- Advertisement -

Related news

- Advertisement -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here