NFE রিপোর্ট কে কেন্দ্র করে আপট্রেন্ডে আসতে পারে -GBPUSD

- Advertisement -

সপ্তাহের শুরু থেকে পেয়ারটি ১.৩৭৫০ প্রাইসকে কেন্দ্র করে ট্রেড করছে,গতকাল পেয়ারটি ১.৩৭৫৫ প্রাইসে ওপেন হলেও পরবর্তীতে দাম বাড়তে থাকে এবং মার্কিন ডলারের বিপরীতে পেয়ারটি ১.৩৮০০ প্রাইস ক্রস করে।আজও পেয়ারটি পুনরায় আপট্রেন্ডে আসতে পারে এদিকে মার্কিন ডলারের প্রাইস কমে দুসপ্তাহের নিন্মে ৯২.৬০ প্রাইসে অবস্থান করছে।  গত সপ্তাহের শেষের দিকে ফেডারেল রিজার্ভের চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েলের  বক্তেব্য ডলারের প্রাইস কমতে শুরু করে।

বিনিয়োগকারীদের বর্তমান নজর শুক্রবার প্রকাশিত জুলাই মাসের Nonfarm Payrolls রিপোর্টের দিকে। আজ মার্কিন বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ নিউজ আছে যা পেয়ারটির দাম কমাতে এবং বৃদ্ধি করতে সহায়তা করবে, সন্ধ্যা ৬.১৫ মিনিটে প্রকাশিত হবে ADP Non-Farm Employment Change এছাড়া ৭.৪৫ মিনিটে Final Manufacturing PMI এবং ৮ টায়  lSM Manufacturing PMI ,  lSM Manufacturing prices, Construction Spending m/m , Crude Oil Inventories এবং ১০ টায় বক্তব্য রাখবেন FOMC Member Bostic Speaks। এছাড়া দুপুর ১২ টায় ব্রিটিশ নিউজ Nationwide HPI m/m এবং  ২.৩০ মিনিটে   Final Manufacturing PMI , প্রকাশিত হবে

আগষ্টে ADP Non-Farm Employment Change এসেছিল ৩ লক্ষ্য ৩০ হাজার ,ধারনা করা যাচ্ছে সেপ্টেম্বর তা বেঁড়ে ৬ লক্ষ্য  ৪০ হাজার  আসতে পারে। এছাড়া ISM Manufacturing PMI ও ৫৯.৫ থেকে কমে ৫৮.৫ আসতে পারে এবং Nationwide HPI m/m -০.৬% থেকে বেঁড়ে ০.১% আসতে পারে সেক্ষেত্রে আজকের নিউজ বেশ প্রভাব ফেলতে পারে GBPUSD এর উপর ভালো প্রভাব ফেলবে , এছাড়া যুক্তরাজ্যে কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা নমনীয় থাকলেও গতকাল দেশটিতে নতুন করে  ২৬ হাজার ৬ শত  জন নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়।  যা ব্রিটিশ পাউন্ডে নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে।  সর্বোপরি GBPUSD আপট্রেন্ড অব্যাহত থাকতে পারে।

পেয়ারের পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.৩৮২০ এবং ১.৩৮৫০।পেয়ারটির আপ্ট্রেন্ড শক্তিশালী হওয়ার ক্ষেত্রে ১.৩৮৫০ ক্রস করা জরুরি অপরদিকে পেয়ারের বর্তমান সাপোর্ট ১.৩৭৩০ এবং পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ১.৩৭০০।

- Advertisement -

সাম্প্রতিক

- Advertisement -

Related news

- Advertisement -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here