ডাউনট্রেন্ডের দিকে যেতে পারে ব্রিটিশ পাউন্ড

- Advertisement -

গত কয়েক সপ্তাহ ধরে ব্রিটিশ পাউন্ডের দাম বাড়ছে।জুন মাসের প্রথম দিন থেকে পেয়ারটি তার আপট্রেন্ড ধরে রেখছে।এর ফলে জুন মাসের শুরু থেকে পেয়ারটি আপট্রেন্ডের মাধ্যমে শুরু হলো গতকাল পেয়ারটি ১৫ সপ্তাহের সর্বোচ্চ প্রাইস ১.৪২৪৮ প্রাইসে হিট করে পরবর্তীতে মার্কিন ডাটাকে কেন্দ্র করে মার্কিন ডলারের বিপরীতে ব্রিটিশ পাউন্ডের প্রাইস কমে সর্বনিম্ম ১.৪১৪৪ প্রাইসে নেমে আসে, বর্তমানে পেয়ারটি ১.৪১৪২ প্রাইসের উপরে অবস্থান করছে।

ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের গর্ভনর গের্তজান ভ্লিয়েঘে বলেন, পরবর্তী বছরে খুব তাড়াতাড়ি ব্যাংক ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্ধি করতে পারে।  এর ফলে মার্কিন ডলারের বিপরীতে বৃটিশ পাউন্ড শক্তিশালী অবস্থানে তৈরি করতে পারে। আজ ও ব্রিটিশ পাউন্ডকে প্রভাবিত করার মতো বেশ কিছু নিউজ আছে।

বুধবার, দুপুর ০২:৩০ Net Lending Individuals রিপোর্ট পাবলিশ হবে ।  মে ক্রেডিট ঋণ ৪.৯ বিলিয়ন থেকে বেড়ে ১১.৩ বিলিয়ন এসেছে।  প্রত্যাশা করা হচ্ছে, জুন মাসে ৭.৪ বিলিয়ন আসতে পারে।

 বর্তমানে মার্কিন ডলারের প্রাইস কমে ৮৯.৮৪ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে  আজ বিনিয়োগকারীদের বর্তমান নজর ব্রিটিশ 10-y Bond Auction দিকে বিশেষজ্ঞদের মতে, চলতি সপ্তাহের পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে। ইকোনমিক রিকভারের কারণে ব্রিটিশ পাউন্ডের প্রাইস বৃদ্ধি পাচ্ছে। এছাড়াও ব্যাংক অব ইংল্যান্ড থেকে বুলিশ মন্তব্য পেয়ারকে প্রভাবিত করতে পারে।

৫৫ দিনের এসএমএ অনুযায়ী পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.৪২০০।

পেয়ারটির পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ১.৪০৮০।

- Advertisement -

সাম্প্রতিক

- Advertisement -

Related news

- Advertisement -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here